|
|
   
   ১৮ জানুয়ারী ২০১৮  
 


 
সদস্য হোন
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
 
 
  

প্রথম পাতা » নার্সারী » ভারতের তামিলনাড়ুর শ্বেত চন্দন



পন্যের নাম: ভারতের তামিলনাড়ুর শ্বেত চন্দন
পন্য ক্রমিক নং: ৩১২
শ্বেত চন্দন পরিচিতি ও ব্যবহার :
================
চন্দন ছোট থেকে মাঝরি ধরণের চিরহরিৎ বৃক্ষ। সাধারণত ১৫-১৮ মিটার পর্যন্ত লম্বা এবং ২-৪ মিটার পর্যন্ত বেড় হয়। চন্দন একটি আংশিক মূল পরজীবী (Root parasitie) উদ্ভিদ। ঘন সবুজ ছোট পাতা ডালের সাথে মুখোমুখি গজায়। গাছের ছাল গাড় খয়েরি এবং বড় গাছের বাকলে লম্বালম্বিভাবে ফাটল থাকে। ৪০ থেকে ৬০ বছরের পরিপক্ক চন্দন গাছের সার অংশ বাদামি এবং সুগন্ধিযুক্ত। একাধারে সুগন্ধ ও অন্যদিকে ঔষধি গুণের জন্যই চন্দনের এত কদর ও সুখ্যাতি । গাছের অসার অংশ সাদা এবং গন্ধহীন। প্রাচীন ভারতীয় ইতিহাসে শ্বেত চন্দন ব্যবহার স্বর্গে আরোহণ ও পুণ্য অর্জনের উপায় হিসেবে বিবেচিত হত। প্রতিদিন নারায়ণ পূজার শরীর চন্দনের ফোঁটায় চর্চিত করা ছিল নৈমিত্তিক প্রথা। সামপ্রতিক কালেও পূজা-অর্চনা চন্দনের ফোঁটা ছাড়া শুদ্ধ হয় না। অপরপক্ষে চন্দন ছাড়া আয়ুর্বেদশাস্ত্রের কথা ভাবা যায় না।
রক্তপাত ও মাথা ধরা কমাতে এবং ঘামাচি ও ব্রঙ্কাইটিস সারাতে মূলত শ্বেত চন্দন ব্যবহৃত হয়। বসন্ত রোগ, বমি বমি ভাব নিরাময়ে, হিক্কা ওঠা বন্ধ করতে, প্রস্রাবের জ্বালাপোড়ায় ঢেঁকিছাঁটা চাল ধুয়ে সেই পানিতে শ্বেত চন্দন ঘষে তার সঙ্গে একটু মধু মিশিয়ে খেলে প্রস্রাবের জ্বালা-যন্ত্রণা অথবা আটকে যাওয়া কিংবা রক্ত প্রস্রাবেও সুফল পাওয়া যায়।
দর: আলোচনা সাপেক্ষে
ষ্টক: ১০ পিচ
পন্য সংযুক্তির তারিখ: ১৬ অক্টোবর ২০১৪
মেয়াদ শেষের তারিখ: ১৪ জানুয়ারী ২০১৫



এই পন্যটি ১০৯২ বার প্রদর্শিত হয়েছে।

বিক্রেতার নাম: সিপন
বিক্রেতার ফোন: 01919009377
বিক্রেতার অবস্থান: গাজীপুর

বিক্রেতার বিস্তারিত তথ্য জানতে এখানে ক্লিক করুন
 

আরো কিছু পন্য


Organic Vegetables
বিস্তারিত

শিং-এর পোনা
বিস্তারিত

মনো-সেক্স তেলাপিয়া মাছের পোনা
বিস্তারিত

দেশি মুরগী
বিস্তারিত